ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ৫০ কি.মি. যানজট : চরম দুর্ভোগ

0
80
ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ৫০ কি.মি. যানজট : চরম দুর্ভোগ

নিউজ নারায়ণগঞ্জ ডট নেট : ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ৫০ কিলোমিটারজুড়ে ভয়াবহ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এতে যাত্রীরা পড়েছেন চরম দুর্ভোগে।
আজ বৃহস্পতিবার কাঁচপুর ব্রিজ থেকে কুমিল্লার দাউদকান্দির রামপুর পর্যন্ত প্রায় ৫০ কিলোমিটার জুড়ে ভয়াবহ যানজট দেখা যায়। কুমিল্লা থেকে ঢাকা যেতে ২ ঘণ্টার রাস্তায় সময় লাগছে ১০-১২ ঘণ্টা।
এদিকে অনেকেই দীর্ঘ যানজটে আটকে অতিষ্ঠ হয়ে ওঠেন। শীতের রাতে যানজটে আটকেপড়া যাত্রীদের পোহাতে হচ্ছে সীমাহীন দুর্ভোগ। বিশেষ করে বৃদ্ধ, নারী ও শিশুরা বেশি ভোগান্তিতে পড়েছেন।
ভুক্তভোগী যাত্রীরা জানান, মঙ্গলবার রাতে এ যানজট শুরু হয়। আজও যানজটে পড়া যানবাহনের গতি ছিল খুবই কম। এতে ভোগান্তিতে পড়েন যাত্রীরা।
জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর আমদানি-রফতানি পরিবহন বন্ধ থাকার পর অতিরিক্ত গাড়ির চাপ ও টানা দুদিনে ধরে মহাসড়কের মেঘনা ও গোমতী সেতুতে গাড়ি আটকে থাকায় এ যানজটের সৃষ্টি হয়।
এ বিষয়ে দাউদকান্দি হাইওয়ে পুলিশের ওসি আবুল কালাম আজাদ জানান, যানজট নিরসনে পুলিশ কাজ করছে।
ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সোনারগাঁও উপজেলার মেঘনা টোল প্লাজা এলাকা থেকে মহাসড়কের দুই প্রান্তে ২০ কিলোমিটার তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। মঙ্গলবার রাত থেকে সৃষ্ট যানজটে হাজার হাজার যাত্রীকে চরম দুর্ভোগে পড়তে হয়। বুধবার এ যানজট আরও ভয়াবহ আকার ধারণ করে। এ সময় অনেকে হেঁটে রওনা দেন। পরিবহন মালিক-শ্রমিক ও যাত্রীদের অভিযোগ, কাঁচপুর হাইওয়ে পুলিশের দায়িত্বহীনতা, বিকল যানবাহন দ্রুত না সরানো, ওজন স্কেল স্থাপন, টোল আদায়ে ধীরগতি যানজটের অন্যতম কারণ।
এ ছাড়া ৮ লেনের গাড়ি দুই লেনে চলাচল, অতিরিক্ত যানবাহনের চাপ, পরিবহন চাঁদাবাজদের বেপরোয়া চাঁদাবাজি, মেঘনা সেতু ও কাঁচপুর সেতু এলাকায় নতুন দুটি সেতুর কাজ পরিচালনা করার কারণে প্রতিদিন মেঘনা সেতু ও কাঁচপুর সেতু এলাকাসহ এর আশপাশের এলাকায় প্রতিনিয়ত যানজটের সৃষ্টি হয়।