ফতুল্লায় দুই তরুণীর লাশ উদ্ধার

0
30
ফতুল্লায় দুই তরুণীর লাশ উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক : ফতুল্লায় পৃথক দুটি স্থান থেকে দুই তরুনীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহতদের একজন অজ্ঞাত। পুলিশের ধারনা তাদেরকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে। আরেকজনের লাশ নিজ ঘরের মেঝে থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। বুধবার দুপুর দেড়টায় লাশ দুটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য শহরের ভিক্টোরিয়া হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

ঘটনাস্থলে যাওয়া ফতুল্লা মডেল থানার এসআই আমিনুল হক জানান, এলাকাবাসীর সংবাদের ভিত্তিতে ভোলাইল এলাকার একটি পরিত্যাক্ত বাড়ির ভিতর থেকে ২০/২২ বছর বয়সী অজ্ঞাত এক তরুনীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। নিহতের পরনে হলুদ সালোয়ার ও সাদা প্রিন্টের কামিজ ছিল। বাম কানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তিনি আরো জানান, প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা হচ্ছে ধর্ষণের পর তরুনীটিকে হত্যা করা হয়েছে। তবে ময়না তদন্তের পর মৃত্যুর কারন জানা যাবে।

নিহতের পরিচয় জানার চেষ্টা চলছে। অপরদিকে আকেটি ঘটনাস্থলে যাওয়া এসআই উত্তম জানান, এলাকাবাসীর সংবাদের ভিত্তিতে ঢালীপাড়া এলাকার মাসুদ মিয়ার ভাড়াটিয়া বাড়ির একটি কক্ষের মেঝে থেকে কুলসুম আক্তার (২৫) নামে এক তরুনীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। কুলসুম ভোলা জেলার লালমোহন থানার রমাগঞ্জ গ্রামের মৃত.নুরুন নবীর মেয়ে। দশ বছর পূর্বে পারিবারিক ভাবে গ্রামের বাড়িতে মামুনের সঙ্গে কুলসুমের বিয়ে হয়।

মাসুম নামে তাদের ৬ বছর বয়সী একটি ছেলে সন্তান আছে। স্বামীর সঙ্গে কুলসুম ফতুল্লার ঢালীপাড়া মাসুমের বাড়িতে ভাড়া থেকে গার্মেন্টে কাজ করতো। ঘটনার পর থেকে নিহতের স্বামী মামুন পলাতক রয়েছে। ময়না তদন্তের পর মৃত্যুর কারন জানাযাবে। তাকে আটক করা গেলে হত্যার কারণ যানা যাবে।
ফতুল্লা মডেল থানার ওসি শাহ মোহাম্মদ মঞ্জুর কাদের জানান, বিচ্ছিন্ন ঘটনা দুটি গুরুত্বসহকারে তদন্ত চলছে। একটি ঘটনাকে ধর্ষণের পর হত্যা বলে আমরা মনে করছি। এরপরে ময়না তদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলে দুটি মৃত্যুর কারন জানা যাবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here