ফতুল্লায় নির্মাণ কাজ করতে যেয়ে বিদ্যুৎস্পর্শে শ্রমকের মৃত্যু

0
12
ফতুল্লায় নির্মাণ কাজ করতে যেয়ে বিদ্যুৎস্পর্শে শ্রমিক নিহত

ফতুল্লা প্রতিনিধি : ফতুল্লায় একটি বাড়িতে নির্মাণ কাজ করতে গিয়ে এক লাখ ৩৩ হাজার ভোল্টের বৈদ্যুতিক তারের সাথে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে জালাল (৩৮) নামের নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। এসময় আরো একজন নির্মাণ শ্রমিক আহত হয়েছে। তবে বাড়ির মালিকের অবহেলার কারণে ১ লাখ ৩৩ হাজার ভোল্টের বৈদ্যুতিক তারকে উপেক্ষা করে এক তলা বাড়াতে গিয়ে নির্মাণ কাজ করতে বিদ্যুতে কেড়ে নিলো নির্মাণ শ্রমিকের প্রান।

শনিবার দুপুরে ফতুল্লার মুসলিমনগর আদর্শপাড়া এলাকার মোহাম্মদ আলীর বাড়ির ছাদে এ ঘটনা ঘটলে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোববার বিকেলে জালালের মৃত্যু হয়।

নিহত নির্মান শ্রমিক জালাল বরিশাল আমতলী রাঙ্গাবালি এলাকার জনৈক সেজন শরীফের ছেলে। সে ফতুল্লার মুসলিমনগর আদর্শপাড়া এলাকার রুহুল আমিন হাজীর ভাড়াটিয়া বাড়িতে বসবাস করে স্বপরিবার নিয়ে নির্মান শ্রমিকের কাজ করতো।

এদিকে অভিযোগ রয়েছে গত দুই বছর আগে মুসলিমনগর আদর্শপাড়া এলাকার মোহাম্মদ আলীর বাড়ির ২য় তলা ছাদে উঠে কাপড় শুকাতে গিয়ে শারমিন নামের এক প্রতিবন্ধি নারীর মৃত্যু হয়েছিল। তখন বিদ্যুৎ অফিসের লোক এসে বাড়ির মালিককে শাসিয়ে যায়। ঐ সময় বাড়ির মালিক মোহাম্মদ আলী বিদ্যুৎ অফিসের অফিসারসহ এলাকাবাসীর কাছে মাফ চেয়ে রক্ষা পায়। কিন্তু দুই বছর পর লোভের বসত হয়ে বাড়ি ভাড়া পাওয়ার আশায় এক লাখ ৩৩ হাজার ভোল্টের বৈদ্যুতিক তারকে তোয়াক্কা না করে আরেক তলা বাড়ানোর কাজ হাতে নেয় বাড়ির মালিক। ২য় তলার ছাদে উঠতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে শারমিনের প্রান গেলেও কিভাবে ৩য় তলা বাড়ানোর চিন্তা মাথায় আসে বাড়ির মালিকের। তাই নির্মাণ শ্রমিক জালালের মৃত্যুর জন্য বাড়ির মালিক মোহাম্মদ আলীকে দায়ী করছেন এলাকাবাসী।

ফতুল্লা মডেল থানার এসআই শাফিউল আলম জানান, শনিবার দুপুরে মুসলিমনগর আদর্শপাড়া এলাকার মোহাম্মদ আলীর বাড়ির ৩য় তলার কাজ করতে গিয়ে এক লাখ ৩৩ হাজার ভোল্টের বৈদ্যুতিক তারে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে দুইজন নির্মাণ শ্রমিকের শরীর ঝলসে যায়। তাদের দুইজনকে মুমূর্ষ অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালের বার্ণ ইউনিটে ভর্তি করানো হয়। রোববার বিকেলে আহতের দুইজনের মধ্যে জালাল নামের একজনের মৃত্যু হয়েছে বলে খবর পেয়েছি। হাসপাতাল হতে লাশ নিয়ে আসার পর নিহতের পরিবারের সাথে আলোচনা করে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।