৫ আসনে চিরতরে লাঙ্গলের কবর রচনা করতে হবে – আব্দুল কাদির

0
162
৫ আসনে চিরতরে লাঙ্গলের কবর রচনা করতে হবে

স্টাফ রিপোর্টার : নারায়ণগঞ্জ ৫ আসনের নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ১৮ টি ওয়ার্ড ও ৭ টি ইউনিয়নের ১৮০ টি এলাকায় গনসংযোগের মধ্য দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ণ জনগনের সামনে তুলে ধরেছেন দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী জেলা আওয়ামী লীগেরে সহ-সভাপতি ও জেলা যুবলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল কাদির।
বিগত প্রায় দুই মাস আগে থেকে তিনি বন্দর উপজেলাধীন কলাগাছিয়া বাজার থেকে ওই কর্মসূচী শুরু করেছিলেন। ঠিক সেই একই স্থানে এবার তিনি কর্মী সভা করেছেন।
শুক্রবার (২ নভেম্বর) বাদ আসর কলাগাছিয়া বাজারে স্থানীয় ৭,৮,৯ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ইয়ানুর মিয়ার সভাপতিত্বে এ কর্মী সভা অনুষ্ঠিত হয়। আর এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে মুল্যবান বক্তব্য রাখেন মনোনয়ন প্রত্যাশী আব্দুল কাদির।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, এ পর্যন্ত প্রতিটি গনসংযোগে সাধারণ জনগনের কাছে দোয়া প্রার্থনা করে এসেছি। তাদের সকলের দোয়া যদি আল্লাহ কবুল করেন আর আমি মনোনয়ন পেয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হতে পারি, তবে আমি আপনাদের কথা দিচ্ছি স্বাধীনতা পরবর্তী বিগত ৪৭ বছরে এ আসনে যতটুকু উন্নয়ন হয়েছে, তার দ্বিগুন উন্নয়ন করবো সরকারের মাত্র ৫ বছর মেয়াদে। তাছাড়া আপনারা জানেন মেয়র আইবী আমার বোন হয়। সেই বোনের উন্নয়ণ দেখতে আপনাদের বন্দর এলাকায় দূর দুরান্ত থেকে মানুষ এসে বিষ্মিত হয়। অতএব আমি আর মেয়র মিলে উন্নয়ণ করলে সদর-বন্দর ৫ আসন সারাদেশে একটি উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে স্বীকৃতি পাবে বলে আমার বিশ^াস।
অপরদিকে দীর্ঘ দিন ধরে এই আসনে আওয়ামী লীগের এমপি না থাকায় ক্ষোভ প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন সভার অন্যান্য বক্তারা।
বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখতে গিয়ে জেলা আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষনা বিষয়ক সম্পাদক খালিদ হাসান বলেন, ৫ আসন থেকে চিরতরে লাঙ্গলের কবর রচনা করতে হবে।
অন্যদিকে আরেক বক্তা কলাগাছিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি রুহুল আমিন বলেন, এবার এই আসনে অন্য কোন দলের প্রার্থী দেয়া হলে দলীয় কোন নেতাকর্মী ওই প্রার্থীর পক্ষে আমরা কাজ করবো না।
বন্দর থানা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ভোলানাথ দাস তার বক্তব্যে বলেন, সরকারের বর্তমান মেয়াদে বন্দর উপজেলা নির্বাচনসহ বিভিন্ন স্থানীয় নির্বাচনে শরীক দল জাতীয় পার্টির বাঁধার মূখে পড়েছে আওয়ামী লীগের অনেকে। সুতরাং আসছে নির্বাচনেও যদি ওই দল থেকে প্রার্থী দেয়া হয় তাহলে আমাদের দলের কোন নেতাকর্মী স্থানীয় কোন নির্বাচনে অংশ নেয়া দূরে থাক কথা বলতেও দিবে না। অতএব মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমাদের অনুরোধ থাকবে এ এলাকায় তাঁর দলকে বাঁচিয়ে রাখতে হলে অতীতের ভূল যেন আর না করেন।
অনুষ্ঠিত এ সভাতে অন্যান্যের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন-ইউনিয়ন কৃষক লীগের সভাপতি রহমত উল্লাহ, ইউনিয়ন শ্রমিক লীগের সহ-সভাপতি আবদুল্লাহ, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মীর মোর্শেদ রনি, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হাফিজুল, ৮ নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি জার্সিস, সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম, ৮ নং ওয়ার্ড শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আসলাম ও ৮নং ওয়ার্ড যুবলীগ নেতা আব্দুস সালাম প্রমূখ।###