নারায়ণগঞ্জ হাসপাতালে নবজাতকের লাশ উদ্ধার

0
24
নারায়ণগঞ্জ হাসপাতালে নবজাতকের লাশ উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক : শহরের নগর খানপুরের পুকুরপাড় এলাকায় একটি নবজাতকের লাশ উদ্ধার করেছে এলাকাবাসী। নবজাত শিশুর প্রতি এমন অমানবিক আচরণে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী।
সোমবার (১৪ জানুয়ারি) সকাল ১০টায় নগর খানপুর পুকুর পাড় এলাকার একটি মাঠের পাশে ময়লা, আবর্জনার মধ্যে নবজাতকের লাশটি উদ্ধার করা হয়। তবে জীবিত না মৃত অবস্থায় নবজাতককে ফেলে গিয়েছে এ বিষয়ে কিছু জানে না এলাকাবসী।
এলাকবাসী জানায়, মৃতদেহ দেখে মনে হয়েছে, নবজাতকটি একটি কন্যা শিশু। শিশুটিকে জন্মের পরপরই গতকাল রাতে কাপড় পেচিয়ে ফেলে যাওয়া হয়েছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকাবাসীদের মধ্যে দেখা গেছে বিরূপ প্রতিক্রিয়া।
প্রত্যক্ষদর্শী ১৩ বছর বয়সী শাকিল বলেন, সকাল ১০টার দিকে মাঠে আসি খেলতে তখন হঠাৎ দেখি কাক লুঙ্গিতে মোড়ানো কিছু একটা খাচ্ছে। সামনে গিয়ে দেখি একটি বাচ্চা। দেখেই ভয়ে সেখান থেকে পালিয়ে যাই।
মাঠের একপাশে আমি কিছু সবজির চাষ করেছি। তাই প্রতিদিন সকালে এসে দেখে যাই। প্রতিদিনের মতো আজও সবজিগুলো দেখার জন্য এখানে আসি। তখন আমার সঙ্গে থাকা ছেলেটি বলল, ময়লার মধ্যে কি যেন আছে। কাক সেটা খুবলে খাচ্ছে। সামনে গিয়ে দেখি একটি নবজাতকের লাশ। সেটি একটি মেয়ে নবজাতক ছিলো। যার এক হাত ভাঙ্গা আর কাক তার মাথা থেকে মগজ বের করে ফেলে ছিলো।
তিনি আরো বলেন, বিষয়টি পুলিশকে জানানো হয়নি। ওই সময় উপস্থিত এলাকাবাসীর সম্মতিক্রমে প্রাথমিকভাবে নবজাতকের লাশটি আমরা মাঠের পাশেই কবর দিয়েছি।
এদিকে এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে এলাকবাসী। উক্ত এলাকার বাসিন্দা সালমা বেগম বলেন, আমাদের এলাকায় এমন একটি ঘটনা হবে কখনো ভাবতে পারিনি। এটি খুবই জঘন্য একটি ঘটনা। একটি শিশুর প্রতি এমন অমানবিক আচরণ মেনে নেওয়া যায় না।
আরেকজন এলাকাবাসী বলেন, হয়তো বা শিশুটি বেঁচে ছিলো। সারা রাত আবর্জনায় পরে থেকে ধীরে ধীরে মারা যায়। একজনের কুকর্মের ফলে আরেকজন শাস্তি পায়। এ শিশুটির কি অপরাধ ছিলো আমি জানি না। কিন্তু শিশুটির এভাবে মৃত্যুর কথা ছিলো না। এটি খুই দুঃখজনক একটি ঘটনা। কোথায় আজ আমাদের মানবতা?
এ বিষয়ে সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. কামরুল ইসলাম বলেন, এ বিষয়ে কোন খবর আমরা পাইনি।