ভোট গ্রহন শেষ চলছে গণনা

0
32
ভোট গ্রহন শেষ চলছে গণনা

নিজস্ব প্রতিবেদক : প্রার্থীদের ভোট বর্জন ছাড়াও বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটনার মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। এখন চলছে ভোট গণনার প্রক্রিয়া। কোনো কোনো কেন্দ্রে ইতোমধ্যে গণনা শুরু হয়ে গেছে। এরপর শুরু হবে ফল ঘোষণা।

নারায়ণগঞ্জে এবার মোট ভোটার ২০ লাখ ৩৪ হাজার ২৪৫ জন। ভোটারদের মধ্যে ১০ লাখ ৩৪ হাজার ৮০ জন পুরুষ। নারী ভোটার ১০ লাখ ২০৪ জন। এর মধ্যে প্রায় ২ লাখ মানুষ নতুন করে ভোটার হয়েছেন।

এবারের নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জের ৫ টি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন ৩৫ প্রার্থী। প্রতীক বরাদ্দ অনুযায়ী আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মনোনীত ৫ প্রার্থী লড়ছেন ধানের শীষ প্রতীকে, ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগের ৩ প্রার্থী নৌকা প্রতীকে , জাতীয় পার্টির ২ প্রার্থী লাঙ্গল প্রতীকে, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের ৫ প্রার্থী হাতপাখা প্রতীকে, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে সিংহ প্রতীকে লড়ছেন ১ জন। আর বাকিরা বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রার্থীরা।

যাদের মধ্যে নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) আসনে লড়ছেন ৭ জন প্রার্থী। এদের মধ্যে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মনোনীত প্রার্থী জেলা বিএনপির সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান লড়ছেন ধানের শীষ প্রতীকে, আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী গোলাম দস্তগীর গাজী (বীর প্রতীক) লড়ছেন নৌকা প্রতীকে, জাতীয় পার্টির মো. আজম খান লড়ছেন লাঙ্গল প্রতীকে, বাংলাদেশ কমিউনিষ্ট পার্টির মো. মনিরুজ্জামান চন্দন লড়ছেন কাস্তে প্রতীকে, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মো. ইমাদাদুল্লাহ লড়ছেন হাতপাখা প্রতীকে, জাকের পার্টির মাহফুজুর রহমান লড়ছেন গোলাপফুল প্রতীকে। এছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মো. হাবিবুর রহমান লড়ছেন সিংহ প্রতীকে।

এখানে মোট ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ৪৯ হাজার ৭’শ ৯১ জন। মহিলা ভোটর ১ লাখ ৭১ হাজার ৩’শ ৯৭ এবং পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৭৮ হাজার ৩’শ ৯৪ জন। এখানে ভোট গ্রহণ চলবে ১২৭টি কেন্দ্রে। এই কেন্দ্রের মধ্যে ৭৬টি সাধারণ এবং ৫১টি ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ-২ (আড়াইহাজার) আসনে লড়ছেন ৪ প্রার্থী। আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী নজরুল ইসলাম বাবু লড়ছেন নৌকা প্রতীকে, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মনোনীত প্রার্থী মো. নজরুল ইসলাম আজাদ লড়ছেন ধানের শীষ প্রতীকে, বাংলাদেশ কমিউনিষ্ট পার্টির মো. হাফিজুল ইসলাম লড়ছেন কাস্তে প্রতীকে এবং ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের নাসির উদ্দিন লড়ছেন হাতপাখা প্রতীকে।

এখানে মোট ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ৮৩ হাজার ৮’শ ৬৭ জন। তারমধ্যে মহিলা ভোটর ১ লাখ ৩৯ হাজার ৭’শ ৪৫ এবং পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৪৪ হাজার ১’শ ২২ জন। এখানে ভোট গ্রহণ চলবে ১১৩টি কেন্দ্রে। এই কেন্দ্রের মধ্যে ৭৩টি সাধারণ এবং ৪০টি ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁ) আসনে লড়ছেন ৮ জন প্রার্থী। মহাজোটের মনোনীত প্রার্থী লিয়াকত হোসেন খোকা লড়ছেন লাঙ্গলে প্রতীকে, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মনোনীত প্রার্থী আজহারুল ইসলাম মান্নান লড়ছেন ধানের শীষ প্রতীকে, স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল্লাহ আল কায়সার লড়ছেন সিংহ প্রতীকে, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মাওলানা মো. ছানাউল্লাহ নূরী লড়ছেন হাতপাখা প্রতীকে, বাংলাদেশ কমিউনিষ্ট পার্টির আ. সালাম বাবুল লড়ছেন কাস্তে প্রতীকে, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডির) এএনএম ফখরউদ্দিন ইব্রাহিম লড়ছেন তারা প্রতীকে, বাংলাদেশ তরীকত ফেডারেশনের (বিটএফ) মো. মজিবুর রহমান লড়ছেন ফুলের মালা প্রতীকে, জাকের পার্টির মো. মুরাদ হোসেন জামাল লড়ছেন গোলাপফুল প্রতীকে।

এখানে মোট ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ৩৮ হাজার ৬৭ জন। তারমধ্যে মহিলা ভোটর ১ লাখ ৪৭ হাজার ১’শ ৭০ এবং পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৫৬ হাজার ৭’শ ২ জন। এখানে ভোট গ্রহণ চলবে ১১৮টি কেন্দ্রে। এর মধ্যে ৬৬টি সাধারণ এবং ৫২টি ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনে লড়ছেন ৮ প্রার্থী। মহাজোটের মনোনীত প্রার্থী একেএম শামীম ওসমান লড়ছেন নৌকা প্রতীকে, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী মুফতি মনির হোসাইন কাসেমী লড়ছেন ধানের শীষ প্রতীকে, বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দলের (বাসদ) সেলিম মাহমুদ লড়ছেন মই প্রতীকে, বাংলাদেশ বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির মাহমুদ হোসেন লড়ছেন কোদাল প্রতীকে, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মুহাম্মদ শফিকুল ইসলাম লড়ছেন হাতপাখা প্রতীকে, সিপিবির প্রার্থী ইকবাল হোসেন লড়ছেন কাস্তে প্রতীকে, বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির (ন্যাপ) মো. ওয়াজিউল্লাহ মাতব্বর অজু লড়ছেন গাভী প্রতীকে, বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের মো. জসীম উদ্দিন লড়ছেন বটগাছ প্রতীকে।

এখানে মোট ভোটার সংখ্যা ৪ লাখ ৪৫ হাজার ৬’শ ১৬ জন। তারমধ্যে মহিলা ভোটর ২ লাখ ২০ হাজার ৪্ষংয়ঁড়;শ ২ এবং পুরুষ ভোটার ২ লাখ ২৫ হাজার ২’শ ১৪ জন। এখানে ভোট গ্রহণ চলবে ৯৫টি কেন্দ্রে। এর মধ্যে ২৮টি সাধারণ এবং ৬৭টি ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ-৫ (সদর-বন্দর) আসনে লড়ছেন ৮ জন প্রার্থী। মহাজোটের মনোনীত প্রার্থী একেএম সেলিম ওসমান লড়ছেন লাঙল প্রতীকে, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মনোনীত প্রার্থী এসএম আকরাম লড়ছেন ধানের শীষ প্রতীকে, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের হাজী মো. আবুল কালাম লড়ছেন হাতপাখা প্রতীকে, বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দলের (বাসদ) আবু নাঈম খান বিপ্লব লড়ছেন মই প্রতীকে, খেলাফত মজলিসের হাফেজ মো. কবির হোসেন লড়ছেন দেয়াল ঘড়ি প্রতীকে, ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশের সৈয়দ বাহাদুর শাহ মুজাদ্দেদী লড়ছেন চেয়ার প্রতীকে, সিপিবির প্রার্থী মন্টু চন্দ্র ঘোষ লড়ছেন কাস্তে প্রতীকে, জাকের পার্টির মোর্শেদ হাসান লড়ছেন গোলাপফুল প্রতীকে।

এখানে মোট ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ৮৩ হাজার ৮’শ ৬৭ জন। তারমধ্যে মহিলা ভোটর ১ লাখ ৩৯ হাজার ৭’শ ৪৫ এবং পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৪৪ হাজার ১’শ ২২ জন। এখানে ভোট গ্রহণ চলবে ১১৩টি কেন্দ্রে। এই কেন্দ্রের মধ্যে ৭৩টি সাধারণ এবং ৪০টি ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here