বন্দর উপজেলা নির্বাচনে লড়াইয়ের প্রস্তুতি নিচ্ছেন মুকুল ও সুফিয়ান

0
74
বন্দর উপজেলা নির্বাচনলড়াইয়ের প্রস্তুতি নিচ্ছেন মুকুল ও সুফিয়ান

স্টাফ রিপোর্টার : এবার বন্দর উপজেলা নির্বাচনে বর্তমান চেয়ারম্যান আতাউর রহমান মুকুলের সাথে আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থী হচ্ছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সুফিয়ান। মুকুল এবার নির্বাচন করবেন স্বতন্ত্র পদে। কারণ বিএনপি এবার নির্বাচন বয়কট করে চলেছে।

এই সরকারের আমলে আর কোনো নির্বাচনে অংশ নেবে না বিএনপি। রূপগঞ্জ, আড়াইহাজার, সোনারগাঁ উপজেলায়ও বিএনপির কোনো প্রার্থী ছিলোনা। তাই বন্দর উপজেলায়ও কোনো দলীয় প্রার্থী থাকছে না বিএনপির। আগামী ১৮ জুন এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। জানা গেছে বিএনপি নির্বাচনে অংশ না নিলেও এই দলের নেতা আতাউর রহমান মুকুল স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে অংশ নেবেন এবং তিনিই পেতে পারেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য একেএম সেলিম ওসমানের সমর্থন।

বিপরিতে আওয়ামীলীগ থেকে আরো যে দুইজন মনোনয়ন চেয়েছেন তারাও সেলিম ওসমান এমপির অনুগত হিসাবেই পরিচিত। তাই মুকুল নির্বাচন করলে সালাম ও রশিদ নির্বাচন নাও করতে পারেন বলে আভাস পাওয়া গেছে। কারণ মাঠ পর্যায়ে মুকুলের বেশ জনপ্রিয়তা রয়েছে। অপরদিকে এবার উপজেলা নির্বাচন করার ব্যাপারে আবু সুফিয়ান বদ্ধপরিকর বলেই জানা গেছে। জানা গেছে তার মনোনয়ন এখন অনেকটা নিশ্চিৎ। তিনি নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডাক্তার সেলিনা হায়াত আইভীর অনুগত।

এই নেতা মনোনয়ন পেলে তিনিও প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ে তুলবেন এতে কারোই কোনো সন্দেহ নেই বলে অনেকে মনে করেন। তবে শেষ পর্যন্ত নির্ভর করতে হবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উপর। কারণ শেখ হাসিনাই মনোনয়ন দিবেন। তাই এবারের উপজেলা নির্বাচনে মুকুল আর সুফিয়ানের মাঝেই প্রতিদ্বন্দ্বিতার সম্ভাবনা বাড়ছে।
এদিকে দৈনিক শীতলক্ষার পক্ষ্য থেকে আতাউর রহমান মুকুল ও একেএম আবু সুফিয়ানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা দুজনেই এবারের উপজেলা নির্বাচনে লড়াইয়ের প্রস্তুতির কথা জানান।
আতাউর রহমান মুকুল শীতলক্ষাকে বলেন এলাকাবাসী পর পর দুইবার আমাকে তাদের সেবা করার সুযোগ দিয়েছেন। আমি আন্তরিকভাবে চেষ্ঠা করেছি তাদের পাশে থাকার। কতোটুকু পেরেছি তারই বিবেচনা করবেন। তবে আমি বেশ আন্তরিকভাবেই মানুষের পাশে থাকার চেষ্ঠা করেছি। আগামী দিনেও তাদের পাশে থাকব ইনশাল্লাহ।
অপরদিকে একেএম আবু সুফিয়ান বলেন, আমি জনপ্রতিনিধি না হলেও একজন রাজনীতিবিদ হিসাবে সব সময়ই সাধারন মানুষের পাশে থেকেছি। এবার নির্বাচন করতে চাইছি। দল মনোনয়ন দিলে নৌকা প্রতিকে নির্বাচন করব। আশা করি মনোনয়ন পেলে জনগন আমাকে ফিরাবে না। আমি এলাকাবাসীর সেবা করার সুযোগ চাই।