সাংবাদিকদের সাথে কাঁধে কাধঁ রেখে চলতে চাই -নবাগত জেলা প্রশাসক

0
26
সাংবাদিকদের সাথে কাঁধে কাধঁ রেখে চলতে চাই -নবাগত জেলা প্রশাসক

স্টাফ রিপোর্টার : ‘ আপনাদের কাছে আমার অনুরোধ যে কোন কিছুর বিষয়ে আমাকে অবগত করবেন। আমি আপনাদের চূড়ান্ত ভাবে কথা দিচ্ছি তাৎক্ষনিক ব্যবস্থা নিবো। সাংবাদিকদের সাথে কাঁধে কাধঁ রেখে চলতে চাই ও কাজ করতে চাই।’
সোমবার (২৪ জুন) বিকাল ৪ টায় জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে নব-নিযুক্ত জেলা প্রশাসক মো. জসিম উদ্দিন সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভায় এ কথা বলেন।
অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক মাসুম বিল্লাহর সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন- স্থানীয় সরকার উপ-পরিচালক মো. আলতাফ হোসেন সহ নারায়ণগঞ্জ জেলার সকল প্রিন্ট, ইলেক্ট্রনিক ও অনলাইনের সাংবাদিকবৃন্দ।
তিনি বলেন, আমি সবার সাথে মিলে মিশে এক সাথে কাজ করতে চাই। আমি চাইবো যে, কোন জায়গায় আমার সহায়তায় সকলে যেন এগিয়ে যেতে পারে। আর পাশা-পাশি সকলের সহায়তায় যেন আমিও এগিয়ে যেতে পারি। কর্মজীবনের পাশা-পাশি ব্যক্তিগত ভাবেও যেন আপনাদের সাথে ভালো সম্পর্ক গড়ে ওঠে এটাই আমার আশা। আপনাদের যে কোন বড় ধরণের সমস্যা থাকলে আমাকে জানাবেন। সাংবাদিকদের জন্য একটি তহবিল আছে যে কোন বড় ধরণের রোগের চিকিৎসার জন্য ব্যবস্থা গ্রহণ করে থাকে।
মতবিনিময় সভায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) এলিনা আক্তার সাংবাদিকদের উদ্দেশ্য করে বলেন, নারায়ণগঞ্জ একটি মানসম্মত জেলা হিসেবে গড়ে তুলতে কীভাবে কাজ করা যায়, সে সুবাদে আমরা কাজ করছি। এ সব ক্ষেত্রে আপনাদের সহযোগিতা কামনা করি। আপনারা যদি মনে করেন কোন বিদ্যালয়ে অনিয়ম হচ্ছে ও আমাদের আওয়াতায় আনা দরকার তাহলে অব্যশই আমাদের জানাবেন। আসলে এদেশ আমাদের। আমরা যদি প্রত্যেকে প্রত্যেকের দায়িত্ব পালন করি, তাহলে আমাদের দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া অনেকটাই সহজ।
সভায় নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি মাহবুবুর রহমান মাসুম বলেন, নারায়ণগঞ্জে ওয়াসার সমস্যা প্রবল। বারবার বলার পরেও সমস্যার সমাধান হয়নি। নারায়ণগঞ্জ মেট্রোপলিটন সিটি কর্পোরেশন হওয়ার কথা, কিন্তু অনেকদিন ধরেই বিষয়টি আটকে রয়েছে। স্বাধীনতার প্রাণকেন্দ্র ছিল রহমতউল্লাহ ইন্সটিটিউট। আর এটার সভাপতি হচ্ছেন জেলা প্রশাসক। কিন্তু এই প্রতিষ্ঠানটির কোনো জবাবদিহিতা নেই। আপনি এখন নারায়ণগঞ্জের বাসিন্দা। আশা করি নারায়ণগঞ্জের বাসিন্দা হিসেবে এসকল সমস্যার সমাধান করবেন। নারায়ণগঞ্জের মর্যাদাকে সুন্দরভাবে ফুটিয়ে তুলবেন।
নারায়ণগঞ্জ সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আব্দুস সালাম বলেন, ‘১৯৮২ সালে নারায়ণগঞ্জ জেলা গঠিত হয়েছিল। এই পর্যন্ত অনেকেই জেলা প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। কিন্তু আমাদের মাঝে স্মরণীয় হয়ে রয়েছে দুই একজন। আমরাও আপনাকে স্মরণীয় জেলা প্রশাসক হিসেবে দেখতে চাই। আমরা কেউ ব্যক্তিগত প্রয়োজনে আপনার দারস্থ হবো না। আমরা চাই স্বচ্ছতা ও জবাবদীহিতা। একজন সাংবাদিকবান্ধন জেলা প্রশাসক হিসেবে আপনাকে দেখতে চাই।’
নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবু সাউদ মাসুদ বলেন, ‘আমরা বিগত দিনে দেখেছি নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসনের সাথে সিটি কর্পোরেশনের বিরোধপূর্ণ সম্পর্ক থাকে। আমরা এবার জেলা প্রশাসনের সাথে সিটি কর্পোরেশনের সমন্বয় চাই। কোনো বিরোধপূর্ণ সম্পর্ক দেখতে চাই না।’
নারায়ণগঞ্জ সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আফজাল হোসেন পন্টি বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ নারায়ণগঞ্জে যোগদান করে ফুটপাত হকারমুক্ত করেছেন। যা অন্য কোন পুলিশ সুপার করতে পারেনি। তেমনিভাবে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক হিসেবে জনসংশ্লিষ্ট কাজে আপনাকে চাই।’
দৈনিক সমকালের জেলা প্রতিনিধি আবু আল আমিন খান মিঠু বলেন, ‘‘আপনি কি করবেন আর না করবেন সেটা আপনার কাজেই প্রমাণ দিবে। আপনার কাছে আমাদের চাহিদা হলো, আমাদের ফোন রিসিভ করবেন। প্রয়োজনে আমাদের সাংবাদিকদের নাম্বারগুলো সেভ করে রাখবেন।’’
দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিনের জেলা প্রতিনিধি রোমান চৌধুরী সুমন বলেছেন, ‘‘নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ ফুটপাত হকারমুক্ত করেছেন নারায়ণগঞ্জবাসীর সুবিধা করে দিয়েছেন। আর আপনি হকারদের পুনর্বাসন করে হকারদের সুবিধা করে দিবেন। কারণ আমার মনে হয় তারা অনেক কষ্টে রয়েছেন। ফতুল্লায় একটি এতিমখানা রয়েছে, সেটির দিকে নজর দিবেন।’’
দৈনিক যুগান্তরের ফতুল্লা প্রতিনিধি আল আমিন বলেন, ‘‘নারায়ণগঞ্জে দুইটি হাসপাতাল রয়েছে। এর মধ্যে একটিতেও নূন্যতম সেবা প্রদান করা হয় না। সেই সাথে ফতুল্লায় অনেক অবৈধ অটোরিক্সা রয়েছে। যেগুলো থেকে চাঁদা উঠিয়ে সন্ত্রাসীরা নানা অপকর্ম করছে। এই দুইটি বিষয়ে আপনি একটু নজর দিবেন।’’
নারায়ণগঞ্জ জেলা ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক এনামুল হোসেন সিদ্দিক বলেন, ‘‘নারায়ণগঞ্জের এমন কিছু জায়গা রয়েছে যেগুলোতে সাংবাদিকদের দেখলেই এড়িয়ে চলার চেষ্টা করে থাকে। বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা থেকে সাংবাদিকদের বঞ্চিত করা হয়। জেলা প্রশাসক হিসেবে এসব বিষয়ে একটু নজর দিবেন।’’
সাংবাদিকদের এসকল বক্তব্যের প্রেক্ষিতে জেলা প্রশাসক মোঃ জসিম উদ্দিন বলেছেন, আপনারা অনেকগুলো গুরুত্বপূর্ণ বিষয় উল্লেখ করেছেন। আমি সবগুলো বিষয়েই নজর দিব। আমি সবসময় ভাল কাজের পক্ষে থাকবো। কখনও প্রতিপক্ষ মনে করবেন না। আমরা সবাই মিলেই কাজ করতে চাই। কথায় কাজে মিল থাকলে মন থেকে শ্রদ্ধা আসবে।