৪ লাখেরও বেশি শিশু খাবে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল

0
21
৪ লাখেরও বেশি শিশু খাবে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল

 

শহর প্রতিনিধি : ভিটামিন ‘এ’ এর অভাবজনিত অপুষ্টি ও শিশুমৃত্যুর হার কমানোর লক্ষ্যে ২২ জুন সারাদেশের ন্যায় নারায়ণগঞ্জেও জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন (১ম রাউন্ড) পালিত হবে।

এবার ৫ উপজেলায় মোট ৪ লাখ ৩৮ হাজার ৪১৯ জন শিশুকে এ ক্যাপসুল খাওয়ানোর লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে জেলা সিভিল সার্জন ও সিটি করপোরেশন কার্যালয়।

বুধবার (১৯ জুন) জেলাজুড়ে  জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন (১ম রাউন্ড) এর কর্ম পরিকল্পনা তুলে ধরে পৃথক পৃথক সভায়  সাংবাদিক ওরিয়েন্টেশন সভার আয়োজন করে এ সকল তথ্য নিশ্চিত করে জেলা সিভিল সার্জন ও সিটি করপোরেশন।

জানা যায়, এই রাউন্ডে জেলায় ৬-১১ মাস বয়সের ৩৫ হাজার ৮৯৫ জন শিশুকে একটি করে নীল রঙের (১ লাখ আইইউ) ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল এবং (২ লাখ আইইউ) ক্যাপসুলের স্বল্পতা থাকায় ১২-৫৯ মাস বয়সের ২ লাখ ৭৩ হাজার ৪৫১ জন শিশুকে দুটি করে নীল রঙের (১ লাখ আইইউ) ভিটামিন ‘এ’ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

জেলা স্থায়ী ও অস্থায়ী ১০৫৬টি টিকাদান কেন্দ্র, অতিরিক্ত ৪৪টি এবং ভ্রাম্যামাণ ১৫টি কেন্দ্রসহ মোট  ১১১৫টি কেন্দ্রে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হবে।

সরকারী, বেসরকারী ও বিভিন্ন সংস্থার ২২৩০ জন (প্রতি কেন্দ্রে ২ জন) স্বাস্থ্য ও পরিকল্পনা বিভাগের কর্র্মী, শিক্ষক ও স্বেচ্ছাসেবকের মাধ্যমে জাতীয় ভিটামিন ‘এ’প্লাস ক্যাম্পেইন বাস্তবায়নের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে।

সিভিল সার্জন কর্তৃক জানা যায়, ক্যাম্পেইন উপলক্ষে জেলা এডভোকেসি ও প্লানি সভা এবং উপজেলায় ওরিয়ন্টশন সভা করা হয়েছে।

ক্যাম্পেইন সফল করতে সর্বত্র মাইকে প্রচারণার ব্যবস্থা এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার বিভাগের কর্মীরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে দিবসটি সম্পর্কে জনগণকে অবহিত করছেন। জেলা তথ্য বিভাগের সচেতনতামূলক প্রচারণা অব্যহত রয়েছে।

জেলার সকল মসজিদের ইমামদের জুম্মার নামাজের খুৎবাসহ অন্যান্য সময়ও এ ক্যাম্পেইন সম্পর্কে জানানোর জন্য ইসলামিক ফাউন্ডেশন নারায়ণগঞ্জ জেলার উপপরিচালককে অনুরোধ করা হয়েছে। জরুরী পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য বিশেষ মেডিকেল টিম গঠন করা হয়েছে।

অন্যদিকে সিটি করপোরেশন স্থায়ী ও অস্থায়ী ৩৪০টি টিকাদান কেন্দ্রের মাধ্যমে ৬-১১ মাস বয়সী প্রায় ২০ হাজার ৪৮৭ শিশু ও ১২-৫৯ মাস বয়সী প্রায় ১ লাখ ৮ হাজার ২২৬ শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

এর মধ্যে ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী শিশুরা পাবে একটি করে এবং ১২-৫৯ মাস বয়সী শিশুরা পাবে দুইটি করে নীল রঙের উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল। এ সময় পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রোধে খালি পেটে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো থেকে বিরত থাকতে বলা হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন সিটি এলাকাকে তিনটি জোনে ভাগ করে এ কর্মসুচি পালন করবে। এর  মধ্যে ১নং জোনে (সিদ্ধিরগঞ্জ-১-৯নং ওয়ার্ড) ১১০, ২নং জোনে (নারায়ণগঞ্জ-১০-১৮নং ওয়ার্ড) ১৫০ এবং ৩নং জোনে (কদমরসুল-১৯-২৭ নংওয়ার্ড) ৮০টি স্থায়ী ও অস্থায়ী টিকাদান কেন্দ্রে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।