জনবল সংকটে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা, সমাধানের আশ্বাস এএসপি’র

0
33
জনবল সংকটে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা, সমাধানের আশ্বাস এএসপি’র

স্টাফ রিপোর্টার : নারায়ণগঞ্জের গুরুত্বপূর্ণ থানাগুলোর মধ্যে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা অন্যতম। অথচ এই থানায় প্রয়োজনীয় জনবল সংকট রয়েছে। থানার বরাদ্দকৃত এসআই ও এএসআই রয়েছে অর্ধেক পরিমান আর এই সীমিত জনবল দিয়েই সিদ্ধিরগঞ্জের মতো অতি গুরুত্বপূর্ণ একটি থানার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে হিমশিম খেতে হচ্ছে প্রশাসনকে। পর্যাপ্ত জনবল নিয়োগ দেয়া হলে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি তদারকে আরো সাফল্য অর্জণ সম্ভব বলে মনে করেন দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তরা।
এ বিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর শাহিন শাহ পারভেজ নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে বলেন, আমাদের এসআই বরাদ্দ রয়েছে ১৯ জন কিন্তু কর্মরত আছে ১০ জন আর এএসআই বরাদ্দ রয়েছে ১৩ জন কিন্তু কর্মরত আছে ৮ জন। আমাদের অর্ধেক জনবল নিয়ে কাজ করতে হচ্ছে। তবুও চেষ্টা করছি আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রেখে জনমনে স্বস্তি বজায় রাখতে। প্রয়োজনীয় জনবল বরাদ্দ পেলে কাজের গতি আরো বৃদ্ধি পাবে এবং মাদক সন্ত্রাসসহ সকল অপরাধ দমনে সফলতার পরিমান বাড়বে।
খুব দ্রুতই সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দিয়ে নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মনিরুল ইসলাম নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে বলেন, এমনিতেই পুলিশে জনবল সংকট রয়েছে। তবে নারায়ণগঞ্জে সমস্যাটা সাময়ীক, স্থায়ী নয়। সাময়ীক এ শূণ্যতা খুব শীঘ্রই সমাধাণ করা হবে।
প্রসঙ্গত, নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার দায়িত্বে থাকাকালীণ সময়ে অপরাধীদের আতঙ্কে পরিনত হয়েছিলেন ওসি মীর শাহীন শাহ পারভেজ, বর্তমানে সিদ্ধিরগঞ্জের অপরাধীদের কাছেও মূর্তিমান এক আতঙ্কের নাম ওসি পারভেজ। যেখানেই অপরাধের সন্ধান পাচ্ছেন সেখানেই নিজে ছুটে যাচ্ছেন। ফলে সিদ্ধিরগঞ্জের সাধারণ মানুষের কাছে আস্থার প্রতীক হয়ে উঠেছেন তিনি।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ২০১৭ সালে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় নিযুক্ত থাকার পরে ২০১৮ সালের ৫ নভেম্বর নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হিসেবে যোগদান করেন মীর শাহীন শাহ পারভেজ। প্রাচ্যের ডান্ডি নারায়ণগঞ্জের আরেকটি অন্যতম শিল্পাঞ্চল সিদ্ধিরগঞ্জের দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই মাদক ব্যবসায়ী, ভূমিদস্যু, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজসহ সমস্ত অপরাধীদের বিরুদ্ধে জিহাদ ঘোষনা করেন তিনি। যেখানেই অপরাধের খবর পেয়েছেন সেখানেই চালিয়েছেন সাড়াশি অভিযান। অপরাধী ধরার বিষয়ে কোন তদ্বীর শোনেন না তিনি। থানার অফিসাররাও ওসির নেতৃত্বে অপরাধমুক্ত সিদ্ধিরগঞ্জ উপহার দিতে দিনরাত কাজ করে যাচ্ছেন। ফলে সিদ্ধিরগঞ্জে অপরাধের পরিমান অন্য যে কোন সময়ের চেয়ে অনেক কমে এসেছে আর স্বস্তি ফিরে এসেছে সিদ্ধিরগঞ্জবাসীর মাঝে।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, নারায়ণগঞ্জের বর্তমান পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদের নির্দেশে নারায়ণগঞ্জের অন্যায় অপকর্ম প্রায় অনেকটা কমে এসেছে। মাদক, সন্ত্রাস আর ভূমিদস্যুতার বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জের পুলিশ প্রশাসনের বর্তমান কর্মকান্ডে মহা খুশি নারায়ণগঞ্জের মানুষ। তাছাড়া বিভিন্ন সেক্টরে চাঁদাবাজি ও অবৈধ জুয়ার আড্ডা বন্ধ করে নারায়ণগঞ্জবাসীর কাছে রূপকথার নায়কে পরিনত হয়েছেন এসপি হারুন। আর এই জাঁদরেল এসপি’র দিক নির্দেশনায় সিদ্ধিরগঞ্জে সকল অবৈধ কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নিয়ে এগিয়ে চলেছেন ওসি মীর শাহীন শাহ পারভেজ।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধীক পুলিশ কর্মকর্তা জানিয়েছেন, সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মীর শাহীন শাহ পারভেজ কখনো অন্যায়ের সাথে আপোষ করেন না। অপরাধী যে পরিচয়েরই হোক না কেন, তিনি কখনো ছাড় দেননা। তাছাড়া অপরাধের খবর পেলে তিনি নিজেই ছুটে যান ঘটনাস্থলে, অনেক সময় ফোর্স পৌছানোর আগে তিনি পৌছে যান এবং তরিৎ ব্যবস্থা গ্রহন করেন। কয়েকমাস পূর্বে সিদ্ধিরগঞ্জের এক কাউন্সিলর ও এক সাবেক কাউন্সিলরের সমর্থকদের মধ্যে ঘটে যাওয়া সংঘর্ষের খবর পেয়ে মোবাইল টিম পৌছানোর আগেই সেখানে গিয়ে উপস্থিত হন ওসি পারভেজ ফলে সংঘর্ষ ব্যাপকতার হাত থেকে রক্ষা পায়।