বিল্লাল হোসেন জেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষক হিসাবে নির্বাচিত

0
181
বিল্লাল হোসেন জেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষক হিসাবে নির্বাচিত

নিউজ নারায়ণগঞ্জ ডট নেট ডেস্ক : নারায়ণগঞ্জ জেলায় শ্রেষ্ঠ শিক্ষক (শ্রেনি) নির্বাচিত হয়েছেন সিন্হা স্কুল এন্ড কলেজের সহকারী শিক্ষক (গণিত) মোহাম্মদ বিল্লাল হোসেন। এ বছরের জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহে জেলার ৫টি উপজেলার শ্রেষ্ঠ শ্রেণি শিক্ষকদের মধ্য থেকে তিনি শ্রেষ্ঠ শ্রেনি শিক্ষক হিসাবে নির্বাচিত হয়েছেন। এর আগে তিনি ২০০১ সালে জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহে সোনারগাঁ থানায় শ্রেষ্ঠ শ্রেনি শিক্ষক হিসাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

এমএসসি এমএড বিল্লাল হোসেন প্রথমে নিজ গ্রামে ষাইটঘরতেওতা উচ্চ বিদ্যালয়, শিবালয়, মানিকগঞ্জ এরপরে মহজমপুর বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়, সোনারগাঁ, নারায়ণগঞ্জ সহকারী শিক্ষক (গণিত) হিসাবে শিক্ষকতা করিয়াছেন এবং বর্তমানে সিন্হা স্কুল এন্ড কলেজের, সোনারগাঁ, নারায়ণগঞ্জ এর সহকারী শিক্ষক (গণিত) হিসাবে কর্মরত আছেন।

তিনি দীর্ঘদিন যাবৎ দৈনিক জনকন্ঠ, দৈনিক প্রথম আলো, দৈনিক ইত্তেফাক, দৈনিক সকালের খবর সহ বহু জাতীয় পত্রিকা শিক্ষা বিষয়ক কলাম লিখে চলছেন।

নারায়ণগঞ্জ জেলায় সোনারগাঁ উপজেলা আইসিটি ট্রেনিং এন্ড রিসোর্স সেন্টার ফর এডুকেশন (ইউআইটিআরসিই) কেন্দ্রে মাস্টার ট্রেইনার হিসাবে স্কুল, কলেজ এবং মাদ্রাসা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক/শিক্ষিকাদের মাল্টিমিডিয়া ডিজিটাল কন্টেন্ট তৈরি প্রশিক্ষন প্রদান করছেন। তিনি বাংলাদেশ গণিত সমিতি, গণিত বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এর আজীবন সদস্য। তিনি ২০১৭ইং সালে আন্তর্জাতিক গণিত সম্মেলন, গণিত বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অংশগ্রহন করেন। তিনি দেশের বাহিরে দুই মাস (ডব্লিউ.ই.টি.টি.ভি.ই.সি) ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব টেকনিক্যাল টিচার্স ট্রেনিং এন্ড রিসোর্স, চেন্নাই তালিমনাড়–, ভারতে অংশগ্রহন করেন। তিনি আন্তর্জাতিক সেমিনার পি.এস.আর ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ, সেভাকাশি, তালিমনাড়– ভারতে অংশগ্রহন করেন। আন্তর্জাতিক সম্মেলন অরুনাই ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ তামিলনাড়–, ভারত অংশগ্রহন করেন। বর্তমানে বাংলাদেশ লেখক শিক্ষক ফোরাম, ঢাকা এর মহাসচিব হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন। তাছাড়া তিনি ই-সায়েন্স ক্লাবের প্রতিষ্ঠা সম্পাদক।

তিনি মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতার ইতিহাস গবেষণা কাউন্সিল সৌজন্যে মহান স্বাধীনতা সম্মাননা ২০১০ পদক লাভ করেন।

বিল্লাল হোসেন মানিকগঞ্জ জেলার শিবালয় থানায় তেওতা গ্রামের মোহাম্মদ শফিজ এবং আকলিমা বেগমের ২য় সন্তান। ব্যাক্তিগত জীবনে তিনি এক ছেলে এবং এক মেয়ের জনক।